মৌসুম শুরুর পক্ষে ভোট ইতালির ক্লাবগুলোর

মৌসুম শুরুর পক্ষে ভোট ইতালির ক্লাবগুলোর

ইউরোপ মহাদেশে করোনা আক্রান্ত দেশগুলোর অন্যতম ইতালি। তবে সমস্যা কাটিয়ে দেশটির সর্বোচ্চ ফুটবল লিগ সিরি ‌’আ’ আবার মাঠে ফেরার অপেক্ষায় কবে শুরু হবে খেলা, করোনা সরিয়ে কবে কাটবে জড়তা—সব দেশেই এখন সবার মুখে ঘুরছে প্রশ্নটি। বিশেষ করে খেলার মহলে। ইউরোপ মহাদেশে করোনা আক্রান্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম ইতালির ফুটবলও খুঁজছে এই প্রশ্নের উত্তর। দেশটির ফুটবল ফেডারেশন তো বিষয়টি নিয়ে ভোটাভুটিরই আয়োজন করেছে। এতদিন শোনা যাচ্ছিল, ইতালির শীর্ষ কয়েকটি ক্লাব চায় না এ অবস্থায় চলতি মৌসুমের খেলা আবার মাঠে গড়াক।

কিন্তু ফেডারেশনের আয়োজন করা ভোটাভুটিতে আবার খেলা শুরুর পক্ষে রায় দিয়েছে লিগের ২০টি ক্লাবই। তবে খেলা কবে আবার মাঠে গড়াবে সে বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত এখনো নেওয়া হয়নি। আজ এক ভিডিও কনফারেন্সে ইতালির ফুটবল ফেডারেশন (এফআইজিসি) শুধু এটাই জানিয়েছে যে ক্লাবগুলো মাঠে ফিরতে উন্মুখ হয়ে আছে। তবে লিগ জুন, জুলাই নাকি আগস্টে মাঠে গড়াবে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়টি নির্ভর করছে সরকারের সবুজ সংকেতের ওপর। সিরি ‌’আ’র সভাপতি পাওলেআ দাল পিনো বলেছেন, ‌’অবশ্যই আমরা ফুটবল মাঠে গড়াতে দেখতে চাই।

যদি এটা না বলি সেটা মিথ্যাই বলা হবে। যে যেই পেশাতেই থাকুক না কেন সেটা চালিয়ে যেতে চায়।’ তবে খেলা শুরু করাটা একটি বিষয়ের ওপরই নির্ভর করছে বলেও উল্লেখ করেন দাল পিনো, ‌’আমরা সরকারের নির্দেশ মেনেই সিদ্ধান্ত নেব। অবস্থার উন্নতি হলেই হয়তো খেলা শুরু করা যাবে। জুভেন্টাসের সভাপতি আন্দ্রেয়া আগনেল্লিও তাঁর ক্লাবের আবার মাঠে ফেরার জন্য উন্মুখ হয়ে থাকার কথা বলেছেন, ‌’দেখুন, আমি চুপচাপ থাকতেই পছন্দ করি। এর জন্যই হয়তো (লিগ নিয়ে) আমার ক্লাবের মতামতের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে।২০১৯-২০ মৌসুম শেষ করার জন্য জুভেন্টাস উন্মুখ হয়ে আছে।

মে মাসেই শুরু হতে পারে ইতালির ক্লাবগুলোর অনুশীলন। আর লিগ আবার শুরু হতে পারে পরের মাসে। এর আগে ইতালির ফুটবল ফেডারেশনের প্রধান গ্রাভিনা বলেছিলেন, ‌’আমি মৌসুম বাতিল করার পক্ষে একদমই নই। কারণ, এতে ইতালির ফুটবলের মৃত্যুই হবে।’ মৃত্যুটা কীভাবে হবে সেই ব্যাখ্যাও দিয়েছেন গ্রাভিনা, ‌’লিগ আর মাঠে না গড়ালে ৭০ থেকে ৮০ কোটি ইউরো ক্ষতি হবে। বাকি ম্যাচগুলো যদি আমরা দর্শকশূন্য মাঠে আয়োজন করি তাহলে ক্ষতি হবে ৩০ কোটি ইউরো। আর লিগের বাকি ম্যাচগুলো যদি খোলা গ্যালারিতে হয় তাহলে ক্ষতিটা কমে দাঁড়াবে ১০ থেকে ১৫ কোটি ইউরোতে।’

Leave a Reply