কর্ণফুলীতে বেতনের দাবিতে কারখানায় শ্রমিক বিক্ষোভ

কর্ণফুলীতে বেতনের দাবিতে কারখানায় শ্রমিক বিক্ষোভ

চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে বেতনের দাবিতে গোল্ডেন সন লিমিটেড এক্সপোর্ট নামের একটি পুতুল কারখানার গেটের সামনে আজ শনিবার সকাল দশটা থেকে দুই ঘণ্টা শ্রমিক বিক্ষোভ হয়েছে। বিক্ষোভের কারণে সড়কে দুই ঘণ্টা শিল্পকারখানাসহ অন্যান্য যান চলাচল বন্ধ থাকে। দুপুর ১২ টায় স্বাভাবিক হয় পরিস্থিতি। উপজেলার সৈন্যারটেক এলাকায় ওই কারখানা অবস্থিত।

স্থানীয় সূত্র জানায়, করোনা পরিস্থিতির কারণে গত ২৫ মার্চ থেকে বন্ধ হয় গোল্ডেন সন লিমিটেড এক্সপোর্ট নামের পুতুল কারখানাটি। ওই সময় কারখানার শ্রমিকদের বেতন দেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের লোকজন সবার বিকাশ অ্যাকাউন্ট নম্বর নেয়। কিন্তু এপ্রিল মাস শেষ হয়ে মে চলে এলেও কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের বেতন পাঠায়নি। কারখানার বিভিন্ন সেকশনে তিন হাজারের মত শ্রমিক আছে। এটি পুঁজি বাজারের তালিকাভুক্ত একটি প্রতিষ্ঠান।

সকাল ১০টার আগে থেকে কারখানার মূল ফটকের সামনে ও সড়কে শ্রমিকেরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করলে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মইজ্জারটেক-ব্রিজঘাট সড়কে উভয় পাশে দুই কিলোমিটার অংশে বিভিন্ন শিল্প কারখানার গাড়ি আটকা পড়ে। পরে পুলিশ উপস্থিত হয়ে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের ভিত্তিতে দুপুর ১২ টার সময় সরে যান শ্রমিকেরা।

শ্রমিকেরা জানান, গত দুই মাস বেতন বন্ধ থাকায় বাসা ভাড়াসহ বিভিন্ন খরচ মেটাতে হিমশিম খেতে হচ্ছিল তাঁদের। আর এ কারণে বেতনের দাবিতে শনিবার সকালে কারখানার সামনে জড়ো হন। আমেনা আকতার নামের এক শ্রমিক বলেন, আমরা মার্চ মাসের বেতন পাইনি। এ কারণে বাসা ভাড়া পরিশোধ করতে পারিনি। সংসারের খরচ মেটাতেও হিমশিম খেতে হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে আসতে হলো।

কারখানার সুইং সেকশনের কর্মরত শ্রমিক আকতার হোসেন বলেন, বিকাশে বেতনের টাকা পাঠানোর কথা বলা হলেও এখনো টাকা পাঠায়নি কর্তৃপক্ষ। আমরাও তো মানুষ, তাই পেটের দায়ে রাস্তায় নামতে হলো। জানতে চাইলে গোল্ডেন সন লিমিটেড এক্সপোর্টের মানবসম্পদ বিভাগের ব্যবস্থাপক মো. হেলালুর রহমান সিকদার বলেন, শ্রমিকেরা অযথা বিক্ষোভ করছেন। আমরা ১০ তারিখ শ্রমিকদের বেতন পাঠিয়ে দেবো।

মার্চের বেতন এখনো দেওয়া হয়নি কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, নানা সমস্যার কারণে দেওয়া হয়নি। কর্ণফুলী থানার পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মুকুল মিয়া বলেন, সকাল দশটা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত শ্রমিকেরা কারখানার সামনে সড়কে বিক্ষোভ করেন। ওই সময় অন্যান্য শিল্প কারখানার গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকে। পরে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে বেতনের আশ্বাস পেলে দুপুর ১২টায় আন্দোলন স্থগিত করেন তাঁরা।

এ ব্যাপারে কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইসমাইল হোসেন বলেন, শ্রমিক বিক্ষোভের খবর পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। দুপুর ১২ টার সময় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

Leave a Reply