আগামী এডিপি ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার

আগামী এডিপি ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার

করোনা পরিস্থিতির কারণে আগামী অর্থবছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) বেশি টাকা খরচ করতে চায় সরকার। গত পাঁচ অর্থবছরে প্রতিবছর মূল এডিপির আকার ১১ থেকে ৪১ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। এবার তা হচ্ছে না। এবার নতুন এডিপিতে টাকার পরিমাণ বাড়ছে না বললেই চলে।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী অর্থবছরে মূল এডিপির আকার দাঁড়াচ্ছে ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের মূল এডিপির আকার ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা। সেই হিসাবে মূল এডিপির আকার বাড়ছে মাত্র ১ দশমিক ২ শতাংশ। এডিপির আকার কম বৃদ্ধির দিক থেকে একটি রেকর্ডও বটে।

কাঙ্ক্ষিত হারে প্রকল্প বাস্তবায়ন না হওয়ায় অবশ্য চলতি অর্থবছরে সংশোধিত এডিপির আকার কমিয়ে ১ লাখ ৯২ হাজার ৯২১ কোটি টাকা করা হয়েছে। এই বিষয়ে পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন আজ বুধবার সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে বলেন, আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এডিপির আকারের প্রস্তাব চূড়ান্ত করবে। এবার ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকার মূল এডিপির আকার খসড়াভাবে চূড়ান্ত করা হচ্ছে। সাধারণত ১৫ মের মধ্যে এডিপি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় পাস করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এবার ভিন্ন পরিস্থিতিতে এডিপি তৈরি করতে হচ্ছে। করোনার কারণে সরকারের সম্পদ আহরণের বিষয়টি মাথা রাখতে হচ্ছে। তার পরও এ বছরের সংশোধিত এডিপির চেয়ে আকার বড়ই হচ্ছে। জানা গেছে, আগামী অর্থবছরের এডিপিতে স্বাস্থ্য ও কৃষি খাতের প্রকল্পগুলোকে বেশি প্রাধান্য দিয়ে বরাদ্দ দেওয়া হবে। নতুন প্রকল্পের তালিকায় এই দুটি খাতকে বেশি গুরত্ব দেওয়া হচ্ছে।

এ ছাড়া বড় বড় প্রকল্প অর্থাৎ সরকারের অগ্রাধিকারের প্রকল্পে বরাদ্দ বেশি দেওয়া হবে। কোন প্রকল্পে কত বরাদ্দ দেওয়া হবে, তা নিয়ে এখন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় কাজ করছে। সব মিলিয়ে এবার প্রকল্প সংখ্যা দেড় হাজারের মতো হবে।

পাঁচ বছরে এডিপির আকার বৃদ্ধির চিত্র: গত পাঁচ অর্থবছরে মূল এডিপি কত বেড়েছিল, সেটা দেখা যাক। চলতি অর্থবছরে মূল এডিপির আকার ১৭ শতাংশ বেড়েছে। এর আগের অর্থবছরে ১১ শতাংশ বেড়ে ওই বছরের মূল এডিপির আকার ছিল ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মূল এডিপির আকার বেড়েছিল ৪১ শতাংশ। ওই বছর মূল এডিপির আকার ছিল ১ লাখ ৫৫ হাজার ৯৩১ কোটি টাকা। এর আগের বছর অবশ্য মাত্র ১৩ শতাংশ বেড়ে এডিপির আকার ছিল ১ লাখ ১০ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। তবে আগামীবারের মতো এত কম বৃদ্ধি আর কখনোই হয়নি।

সাধারণত মূল এডিপির বাইরে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়ন খরচও অন্তর্ভুক্ত করা হয়। জানা গেছে, আগামী অর্থবছরে স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়ন খরচ ১০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা হচ্ছে। সেই হিসাবে সব মিলিয়ে এডিপির আকার দাঁড়াবে ২ লাখ ১৫ হাজার কোটি টাকার মতো।

Leave a Reply